June 24, 2024, 1:43 pm
শিরোনাম :
পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশুর হাটের সার্বিক আইন – শৃঙ্খলা রক্ষার্থে মতবিনিময় সভা সম্পন্ন পিবিআই এর দৃঢ়তায় মানবপাচারকারী এর হাত থেকে ভিকটিম উদ্ধার, আটক -৩: ভিন্ন আঙ্গিকে নবাবগঞ্জ উপজেলা হিন্দু ছাত্র মহাজোট এর শরবত ও স্যালাইন বিতরণ কর্মসূচি এলজিইডি এর মূল্যায়নে শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন এম এ বারী বাবুল মোল্লা নরসিংদীতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২ পক্ষের টেঁটাযুদ্ধ আন্তর্জাতিক মা দিবস উপলক্ষে BHDS অপরাধ প্রতিরোধ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে আলোচনা ও গুণীজন সম্মাননা প্রদান নরসিংদীর রায়পুরায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যা ব্যবিচারে লিপ্ত থাকায় আবাসিক হোটেল থেকে নারী – পুরুষ গ্রেফতার -২ নবাবগঞ্জের শোল্লায় এক শিশুকে হত্যার অভিযোগে ২ জন গ্রেফতার রুগঞ্জে জালভোট দেওয়ার সময় ২ যুবক আটক:

স্বামী কারাগারে অত:পর ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে

ক্রাইম রিপোর্টার,নাবিলা শারমিন

বন্দরে পান্নু নামে এক রাজমিস্ত্রিকে কারাগারে পাঠিয়ে, স্ত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ইউপি সদস্যর নাম সফুরউদ্দিন। তিনি ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ড মেম্বার। তিনি মালিভিটা গ্রামের মৃত সংশর আলী চৌকিদারের ছেলে।

ভুক্তভোগী ওই নারীর এক মিনিট ৫২ সেকেন্ডের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে উপজেলা জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী থানা পুলিশের কাছে বিচার না পেয়ে অবশেষে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার বরাবর; সফুরউদ্দিন মেম্বারের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। জানা গেছে, বন্দর উপজেলার মদনপুর ইস্টটাউন এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন সীমা আক্তার ও রাজমিস্ত্রি পান্নু মিয়া। পারিবারিক কলহে স্ত্রীর দেয়া একটি মামলায় কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ স্বামী পান্নু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে। তারপর থেকে সফুরউদ্দিন মেম্বারের সঙ্গে সীমা আক্তারের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ সম্পর্কে সফুরউদ্দিন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ চিটাগাং রোড ওয়ার্কসপ মোড়ে চারতলা বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বসবাস করতেন। এছাড়াও কামতাল বিলের মৎস্য খামারে নিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে।

ভুক্তভোগী সীমা আক্তারের স্বামী পান্নু মিয়া জানান, কামতাল তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ দিয়ে আমাকে ধরে নেয়।

পরে সফুরউদ্দিন মেম্বার ও আমার স্ত্রী মিলে  আমাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়। আমি জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার আগ পর্যন্ত সীমা মেম্বারের সঙ্গে ছিলেন। তাদের মধ্যে সম্পর্ক  ছিল। ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ডবাসী জানান, মালিভিটা এলাকায় প্রবাসী জাকির হোসেনের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে তুলে অবশেষে বিয়ে করেন সফুরউদ্দিন মেম্বার।  প্রবাস জীবনের আয়রোজগার সব আত্মসাত করে সর্বস্বান্ত করেছে জাকির হোসেনকে। সফুরউদ্দিন মেম্বার ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা। পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ প্রত্যাহার করেছে সীমা আক্তার। বর্তমানে তিনি বিদেশে রয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা

Categories